২৪ ঘন্টাই খবর

জে.সি বোস বাস্তবায়ন পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা মোঃ মহিউদ্দিন।

জে.সি বোস বাস্তবায়ন পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা মোঃ মহিউদ্দি

 

 

তুষার আহাম্মেদ- বিক্রমপুরে জগৎ বিখ্যাত বিজ্ঞানী স্যার জগদীশ চন্দ্র বসুর নামে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রস্তাবনা উপস্থাপন করা হয়েছে গত ২৮ জুন। দাবিটি জোরালো করার জন্য স্যার জে.সি বোস বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস্তবায়ন পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে থাকছেন মুন্সীগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ’র সভাপতি ও মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সাবেক সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। এছাড়াও উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য হিসেবে মুন্সীগঞ্জ-১ (শ্রীনগর-সিরাজদিখান) আসনের সাংসদ মাহী বি চৌধুরী, মুন্সীগঞ্জ-২ (লৌহজং-টঙ্গীবাড়ী) আসনের সাংসদ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমীন এমিলি, মুন্সীগঞ্জ-৩ (সদর ও গজারিয়া) আসনের সাংসদ মৃণাল কান্তি দাস, সংরক্ষিত মহিলা আসন-০৩’র সাংসদ শবনম জাহান শিলা এবং সংরক্ষিত মহিলা আসন-২২’র সাংসদ ও মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে নির্বাচিত করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন স্যার জে.সি বোস বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক সহকারি অধ্যাপক আবু জাফর আহমেদ মুকুল এবং সদস্য-সচিব উপাধ্যক্ষ মো. দেলোয়ার হোসেন মৃধা।

প্রধান উপদেষ্টা মোহাম্মদ মহিউদ্দিন তিনবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ক্রীড়া সম্পাদক ছিলেন। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চীফ সিকিউরিটি অফিসার ছিলেন। ৬ দফা আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন, ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন ও মুক্তিযুদ্ধসহ তৎকালীন সকল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে তিনি সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। ১৯৮৬ সালের তৃতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন মুন্সীগঞ্জ-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৬১ সালে মুন্সীগঞ্জ বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করে সরকারি হরগঙ্গা কলেজ থেকে এইচএসসি ও স্নাতক পাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন।

স্যার জে.সি বোস বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক সহকারী অধ্যাপক আবু জাফর আহমেদ মুকুল এবং সদস্য-সচিব উপাধ্যক্ষ মো. দেলোয়ার হোসেন মৃধা বলেন, প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা স্যার জে.সি বোস বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ইতিবাচক। দল-মত নির্বিশেষে বৃহত্তর স্বার্থে বিক্রমপুরের সকল জনগণকে সম্পৃক্ত করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসার আহবান জানান তারা।

 

উল্লেখ্য যে, এর পূর্বে ২০১৮ সালে তরুণ প্রজন্মের পক্ষ থেকে জাতীয় নির্বাচনের পূর্বে স্থানীয় সাংসদ মাহী বি চৌধুরির কাছে লেখক আবদুর রশীদ খান, খোরশেদ আলম চৌধুরি, ঢালী আমিরুল ইসলাম, যগ্ন-সচিব মো. নজরুল ইসলাম ও মোতাহের হোসেন, সহকারী অধ্যাপক আবু জাফর আহমেদ মুকুল ও শবনম শারমিন লুনা, ডা. রাশেদুল ইসলাম, মো. শাহাদাত হোসেন আকাশ ও মো. আল আমিন হোসেন এর নেতৃত্বে ইশতেহার হস্তান্তর করা হয়েছিল।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.