২৪ ঘন্টাই খবর

ইউরোর প্রথম কোপার দ্বিতীয়

আগামী ৭ই জুলাই দিবাগত রাত ১টায় ইউরো ২০২০ এর প্রথম সেমিফাইনালে লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে এই আসরের হট ফেবারিট ইতালি এবং স্পেন। কোয়ার্টার ফাইনালে ইতালি শক্তিশালী বেলজিয়ামকে ২-১ গোলে রুখে দেয়।অপরদিকে স্পেন সুইজারল্যান্ডের সাথে ১২০ মিনিট খেলে ১-১ গোলে ড্র করে। ফলশ্রুতিতে খেলা গড়ায় পেনাল্টি শুট-আউটে, যেখানে ৩-১ গোলে জয় পায় স্পেন। দুদলের শেষ পাঁচ দেখায় হেড টু হেডে স্পেন এগিয়ে। যেখানে ২০১২ সালের ইউরো ফাইনালে ইতালি স্পেনের কাছে ৪-০ গোলে হেরে যায়।লুইস এনরিকের চিন্তার কারণ হতে পারে তার ফাইনাল থার্ডের পারফরম্যান্স। তার উপর এই ম্যাচে ইনজুরির জন্য  সারাবিয়া প্রায় অনিশ্চিত। তবে পেদ্রি, বুসকেট, মোরাতাদের উপর ভরসা রাখতেই পারেন এনরিকে এবং স্পেনের ফ্যানরা। ইনজুরির সমস্যা রয়েছে ইতালিতেও। ইনজুরির জন্য এই ইউরোর সেরা লেফটব্যাক লিওনার্দো স্পিনাৎসলা মিস করবে স্পেনের বিপক্ষে সেমিফাইনাল ম্যাচটি।তবে  ইমোবিল,ইনসিনিয়ে,ভেরাত্তি, কিল্লেনী,বনুচ্চিদের উপর জয়ের বাজি ধরা যেতেই পারে।
অপর দিকে কোপা আমেরিকার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আগামীকাল সকাল ৭টায় মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা এবং কলম্বিয়া। কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা ইকুয়েডরকে এবং কলম্বিয়া উরুগুয়েকে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে। আর্জেন্টিনার সাথে শেষ ৩ দেখায় কলম্বিয়া এখনো অপরাজিত। যা মনস্তাত্ত্বিক ভাবে এগিয়ে রাখবে কলম্বিয়াকে।কলম্বিয়ায় ইনজুরি সমস্যা না থাকলেও আর্জেন্টিনার সেন্টার ব্যাক ক্রিশ্চিয়ান রোমারোকে পাওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।। কলম্বিয়ার জন্য ভয়ের কারণ হতে পারে ফর্মে থাকা অদম্য মেসি। মেসি এখন পর্যন্ত এই কোপা আমেরিকার টপ স্কোরার এবং টপ এসিস্টদাতা। কলম্বিয়ার ফরোয়ার্ড ফর্মে না থাকলেও ফর্মে রয়েছে তাদের ডিফেন্স লাইনআপ যা কলম্বিয়ার কোচ রুয়েডার জন্য স্বস্তিদায়ক হলেও চিন্তার কারণ হতে পারে মেসির আর্জেন্টিনার জন্য।

Leave A Reply

Your email address will not be published.