২৪ ঘন্টাই খবর

মাছ কোম্পানির বর্জ্যের দুর্গন্ধে হাজারও গ্রামবাসীর জীবন যাত্রা বাধাগ্রস্ত

বি এম রাকিব হাসান, খুলনা ব্যুরোঃ-
খুলনায় একটি মাছ কোম্পানির বর্জ্য নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় দুর্গন্ধে হাজার হাজার  গ্রামবাসীর জীবন যাত্রা মারাত্বক ভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে বার বার অভিযোগ করেও অদ্যাবধি কোন সুফল পায়নি তারা। যার কারনে বিভিন্ন রকম রোগে ভূগছে এখানকার বাসিন্দারা। তবে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট্র পরিবেশ অধিদপ্তর।

খুলনার পূর্ব রূপসায় রূপালী সী ফুডস্ নামক মাছ কোম্পানি অবস্থিত। আর এই কোম্পানির বর্জ্য নিষ্কাশনের জন্য তেমন কোন সু-ব্যবস্থা নাই। যার কারনে প্রায় ১ যুগ ধরে এখানকার হাজার-হাজার  গ্রামবাসী প্রতিনিয়ত দুর্গন্ধের সাথে লড়াই করে দিন অতিবাহিত করছেন। মাছ কোম্পানির হিমায়িত চিংড়ি প্রসেসিং কাজে ব্যবহৃত ব্লিচিং পাউডারসহ কাঁচামাল সামগ্রী পচে এ দুর্গন্ধের সৃষ্টি হচ্ছে। যার কারনে বায়ু  দূষণের মাধ্যমে এখানকার বাসিন্দারা বিভিন্ন রকম পেটের পীড়ায় ভুগছে।

স্থানীয়রা বলেন, ‘কোম্পানির ব্লিচিং ও বিভিন্ন কেমিকেল জাতীয় দ্রব্য ছোট খাল দিয়ে বের হওয়ার সময় পচে মারাত্মক দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে। বিশেষ করে প্রখর রোদের সময় দুর্গন্ধ বেশি ছড়িয়ে পড়ে।
এলাকার ভুক্তভোগী মহল এ ব্যাপারে কোম্পানি কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার বলেও কোনো সুফল পাননি। কোম্পানির এ বর্জ্য যাতে অচিরেই স্থায়ীভাবে বন্ধ করা হয় এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তিনি।

রূপসা রূপালি সি ফুডসের জেনারেল ম্যানেজার মো.মনোয়ার হোসেন এ ঘটনার জন্য ভূল শিকার করে দুর্গন্ধ প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহনের কথা জানিয়েছেন তিনি।

খুলনা বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তর কার্যালয়ের পরিচালক সাইফুর রহমান খান বলেন, বিষয়টি নিয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে সংশ্লিষ্ট মাছ কোম্পানির বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
তবে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের যথাযত ব্যবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে দীর্ঘদিনের সমস্যার সমাধান হবে এমনটাই মনে করছেন এখানকার বাসিন্দারা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.