২৪ ঘন্টাই খবর

ইসলামের দৃষ্টিতে ভ্রু প্লাগ ও আকৃতি পরিবর্তন

মোঃ রাব্বি সাহিদি সারোয়ার হোসেন :
মানুষ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টির সেরা জীব। মহান আল্লাহ তা’আলা মানুষকে সুন্দর অবয়ব ও গঠনের অধিকারী করে সৃষ্টি করেছেন। মহান আল্লাহ তা’আলা পবিত্র কুরআনে বলেন,
‘আমি মানুষকে সর্বোত্তম সুন্দর আকৃতিতে সৃষ্টি করেছি। (সূরা : ত্বীন, আয়াত : ৪)
মহান আল্লাহ তা’আলা মানুষ ব্যতিত অন্য কোন সৃষ্টিকে এতো সুন্দর আকৃতি আর গঠনশৈলী দিয়ে তৈরি করেননি। দুঃখজনক হলেও সত্য আজকাল মানুষের ছবি বিকৃত করা একটা ফ্যাশনে পরিণত হয়ে যাচ্ছে। মানুষের ছবি বিকৃত করা ইসলাম কখনো সমর্থন করে না। আশরাফুল মাখলুকাত মানুষের ছবি বিকৃত করা আল্লাহর সৃষ্টির মধ্যে পরিবর্তন করার শামিল।
ইসলামে কঠোর নিষেধ থাকা সত্ত্বেও দেখা যায়, সাধারণ মানুষতো বটে অনেক ইসলামী দলের নেতারা পর্যন্ত কারো বক্তব্যে তাদের নিজেদের মতের অনুকূলে না হলেই তার ছবিকে বিকৃত করা হয়। অনেকে মানুষের ছবিকে বিকৃত করে,
বিভিন্ন Apps এর সাহায্যে নিজেদের বৃদ্ধকালের ছবি, কার্টুন ছবি এবং কুকুর, বানর, ছাগল, বিচ্ছু ইত্যাদি জীব-জন্তুর রূপ দিয়ে ফেসবুকে আপলোড দিচ্ছেন। যারা এরকম জঘন্য গুনাহের কাজকে নিজেদের সামান্য তুষ্টির জন্য ছবি বিকৃত করছেন তাদেরকে কিয়ামতের দিন মহান আল্লাহর আদালতে অবশ্যই দাঁড়াতে হবে। কেননা আল্লাহ তার সৃষ্ট মানুষের ছবিকে জীব-জন্তুর ছবিতে রূপান্তর করার অপরাধকে সহ্য করেন না। মহান আল্লাহ তা’আলা বলেন;
“আমি আদম সন্তানকে মর্যাদা দান করেছি’ (সুরা বণী ইসরাইল, আয়াত : ৭০)।
স্বয়ং আল্লাহ তা’আলা যেখানে মানুষের মর্যাদা দান করেছেন, সৌন্দর্য-শ্রেষ্টত্ব দিয়ে পরিপূর্ণতা দান করেছেন। সেখানে আমরা কেনো নিজেদের আকৃতি অন্যভাবে রূপান্তর করছি?
তাছাড়া কেউ কেউ সৌন্দর্যবৃদ্ধি ও নিজেকে আরও আকর্ষণীয় করার জন্য যে সার্জারি করা হয় তাকে কসমেটিক সার্জারি বলে। যেমন- নাক, চিবুক, ঠোঁট, চোখের পাতা, কান, স্তন এসব অঙ্গের সার্জারি করে আকর্ষণীয় করে তোলা। ইসলাম এটাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে।
কেননা আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘নিশ্চয়ই আমি মানুষকে উত্তম অবয়ব দিয়ে সৃষ্টি করেছি।’ (সূরা ত্বিন : ৪)।
এরপরও নিজেকে অনাকর্ষণীয় মনে করে আল্লাহর সৃষ্টিতে পরিবর্তন সাধিত করা হারাম।
কুরআনে এটাকে শয়তানের কর্ম বলা হয়েছে-
পবিত্র কুরআন শরীফে এসেছে;
” শয়তান বলল- আমি অবশ্যই তোমার বান্দাদের মধ্য থেকে নির্দিষ্ট অংশ গ্রহণ করব। তাদেরকে পথভ্রষ্ট করব, তাদেরকে আশ্বাস দেব; তাদেরকে পশুদের কর্ণ ছেদন করতে বলব এবং তাদেরকে আল্লাহর সৃষ্ট আকৃতি পরিবর্তন করতে আদেশ দেব। যে কেউ আল্লাহকে ছেড়ে শয়তানকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করে, সে প্রকাশ্য ক্ষতিতে পতিত হয়।’
(সূরা নিসা : ১১৮-১১৯)
হাদিসে রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন, ‘আল্লাহ ওই নারীর ওপর অভিশাপ দিয়েছেন যে অন্য নারীর মাথায় কৃত্রিম চুল সংযোজন করে বা নিজ মাথায় চুল সংযোজন করায় । আর যে নিজের শরীরে উল্কি আঁকে বা অন্যকে আঁকিয়ে দিতে বলে।’ (সহিহ বুখারি : ৫৯৩৭ )
সুতরাং আসুন আল্লাহকে ভয় করি এবং নিজেদের চেহারা Apps এর মাধ্যমে পরিবর্তন করা বন্ধ করি!

Leave A Reply

Your email address will not be published.