২৪ ঘন্টাই খবর

শ্রীমঙ্গলের ঘরে ঘরে বাড়ছে জ্বর -সর্দি, কাশির আগ্রহ নেই নমুনা পরীক্ষার।

শ্রীমঙ্গলের ঘরে ঘরে বাড়ছে জ্বর -সর্দি, কাশির আগ্রহ নেই নমুনা পরীক্ষা
মোঃইমরান হোসেন
স্টাফ রিপোর্টার
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে গেল কয়দিন থেকে অল্প অল্প বৃষ্টি, সেই সাথে শ্রীমঙ্গলের ঘরে ঘরে বাড়ছে জ্বর সর্দি ও কাশির প্রাদুর্ভাব।চারদিকে জ্বরের এতো বেশি প্রকোপ বাড়লেও অনেকেই মনে করছেন অব্যাহত বৃষ্টির ফলে সামান্য ঠাণ্ডা লাগা কিংবা বৃষ্টির পানিতে ভেজার কারণেই হচ্ছে জ্বর।কিন্তু স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশে চলছে করোনার ডেল্টা ভেরিয়েন্ট।বৃষ্টির অজুহাত না দেখিয়ে এখনই জ্বর নিয়ে মানুষকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে। করাতে হবে করোনা ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা।
শ্রীমঙ্গল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,প্রায় প্রতিটি বাড়িতে জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হচ্ছে পরিবারের অনেকেই। এর মধ্যে শিশু ও বৃদ্ধদের সংখ্যা বেশি। আশঙ্কাজনক হারে জ্বরের রোগী বেড়ে যাওয়ায় জনসাধারণের মাঝে করোনাভীতিও ছড়িয়ে পড়ছে। বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। করোনা আক্রান্তের ভয়ে অনেকে ডাক্তারের কাছে না গিয়ে বাড়িতে গোপনে নিজের মতো করে চিকিৎসা নিচ্ছেন।শ্রীমঙ্গল শহরের বেশ কয়েকটি ওষুধের দোকানদারের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত কয়েক দিনে সর্দি,জ্বর,কাশি, শ্বাসকষ্ট ও গলা ব্যথার ওষুধ বিক্রি হয়েছে স্বাভাবিকের চাইতে কয়েক গুন বেশি। এসব রোগের ওষুধ সরবরাহে হিমশিম খাচ্ছেন তারা।
ফার্মেসি ব্যবসায়ি জানান, গেল ১০ দিন থেকে প্রচুর পরিমাণে প্যারাসিটামল বিক্রি হচ্ছে।এই ব্যাপার নিয়ে মৌলভীবাজার সদর হসপিটালে এক কর্মরত ডাক্তারের সাথে কথা বলে জানা যায়।বর্তমান আক্রান্তের হার ৪৪%।
অত্যন্ত শংকার বিষয় ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য ডেডিকেটেড বেডের প্রায় ৯০% পূর্ণ হয়ে গিয়েছে, আইসিইউ বেড প্রায় সবগুলি সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছেল

Leave A Reply

Your email address will not be published.