২৪ ঘন্টাই খবর

আইনের জটিলতায় বছরের পর বছর পরে আছে মুন্সিগঞ্জ গজারিয়াতে।

আইনের জটিলতায় বছরের পর বছর পরে আছে মুন্সিগঞ্জ গজারিয়াত

সাখাওয়াত হোসেন মানিক

 

বিভিন্ন মামলায় আটক অসংখ্য যানবাহন মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া হাইওয়ে থানা চত্বরে খোলা আকাশের নিচে অযত্ন-অবহেলায় পড়ে আছে। আইনি জটিলতায় বছরের পর বছর পড়ে থাকার কারণে এসব যানবাহন বিনষ্ট হয়ে যাচ্ছে। নিত্যদিনের রোদ-বৃষ্টি-ঝড় আর ধূলায় এসব গাড়ির যন্ত্রাংশে মরিচা ধরে গেছে। একই স্থানে দীর্ঘদিন ধরে এভাবে পড়ে থাকায় অনেক যানবাহন চলাচল ক্ষমতা হারিয়েছে। ফলে কমে গেছে এর বাজারদর। অন্যদিকে, আইনি জটিলতা থাকায় এসব গাড়ি নিলামে না তুলতে পারায় রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

চোরাই পথে দেশে আসা, নিবন্ধনহীন কিংবা অপরাধ সংশ্লিষ্টতায়,মাদক মামলার আলামত হিসেবে জব্দকৃত, যানবাহন থানার সামনে পড়ে আছে দীর্ঘদিন। 

এদিকে জব্দ করা এসব যানবাহন নিয়ে বিপাকে রয়েছে পুলিশও। আইনি জটিলতায় বছরের পর বছর মামলার সুরাহা না হওয়ায় যানবাহনের স্তুপ বাড়ছেই। এতে থানার দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডেও বিঘ্ন ঘটছে। সংশ্লিষ্ট থানার কর্মকর্তাদের দাবি, জব্দ করা যানবাহন রাখার জন্য আলাদা স্থানে নির্দিষ্ট গ্যারেজ করে দেওয়া গেলে যানবাহন সুরক্ষিত থাকবে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বর্তমানে গজারিয় হাইওয়ে থানায় জব্দ করা মোটরসাইকেল, প্রাইভেট কার-মাইক্রোবাস , ট্রাক, ও বাস রয়েছে অনেকগুলো।

   ৭-৮ বছর আগে আটক করা গাড়িও আছে এখানে, যার বেশির ভাগই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। 

তাছাড়া গজারিয়া থানার সাবেক পুলিশ ফাড়িতেও রয়েছে অনেক যানবাহন। সেগুলোর আদৌ কোন শুরাহা হবে কিনা প্রশ্ন জনমনে। তবে সে সবের মধ্যে আবার বেশ কিছু গাড়ি অন্তত এক যুগ আগে জব্দ করা হয়েছে। সর্বশেষ ‘চিহ্ন’ হিসেবে এসব গাড়ির বডিই শুধু টিকে আছে। বাকিগুলোর অবস্থাও জরাজীর্ণ। দিন দিন গাড়ির যন্ত্রাংশ ক্ষয়ে যাচ্ছে।

জানতে চাইলে গজারিয়া থানার ওসি রইস উদ্দিন বলেন, জায়গা সঙ্কুলান না হওয়ায় এগুলোকে খোলা আকাশের নিচে রাখতে হয়। জব্দ করা যানবাহন রাখার জন্য যদি একটি নির্দিষ্ট স্থান কিংবা গ্যারেজ থাকত, তাহলে এগুলো নষ্ট হতো না। পরে নিলামে তুলেও অধিক অর্থ পাওয়া যেত। তাছাড়া দৈনিক অথবা মাসে যে পরিমাণ গাড়ি আমাদের এখানে জমা হচ্ছে, সেই অনুসারে মামলার নিষ্পত্তি হচ্ছে না। আইনি জটিলতার ফলে জব্দ হওয়া বাহনের সংখ্যা ক্রমে বাড়ছে। এছাড়া থানায় এত গাড়ি পড়ে থাকায় অনেক সময় দৈনন্দিন কার্যক্রমও বিঘ্নিত হয়। আমরা চেষ্টা করি দ্রুত মামলা নিষ্পত্তি করতে বা গাড়িগুলো নিরাপদ স্থানে রাখতে। যানবাহন গুলোকে রাখার জন্য আলাদা জায়গার ব্যবস্থা থাকলে সব দিক থেকে সুবিধা হতো।

Leave A Reply

Your email address will not be published.