২৪ ঘন্টাই খবর

কুলিয়ারচরে চুরি করার সময় এক চোরকে চিনতে পারায় এক বৃদ্ধকে হত্যার চেষ্টা।

কুলিয়ারচরে চুরি করার সময় এক চোরকে চিনতে পারায় এক বৃদ্ধকে হত্যার চেষ্ট

 

মুহাম্মদ কাইসার হামিদঃ

 

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে চোরচক্র ফের মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে শুরু করেছে। এই সব চোর রাতের বেলায় চুরি করে, দিনের বেলায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও ধরা না পড়ার কারণে কেউ কিছু বলতে পারছে না তাদের। যদি চুরি করার সময় এদের কেউ চিনে ফেলে তাহলে তাদের উপর নেমে আসে ভয়াবহ বিপদ। তেমনই ঘটনা ঘটেছে কুলিয়ারচর উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের নাপিতেরচর গ্রামের মুসলিম উদ্দিনের বাড়িতে।

 

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত বুধবার (১৬ জুন) গভীর রাতে নাপিতেরচর গ্রামের মোঃ মুসলিম উদ্দিন (৬০) তার নিজ বসত ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। এসময় ঘুমন্ত অবস্থায় একটি চোরচক্র ঘরে ভিতর ঢুকে চুরির উদ্দেশ্যে মালামাল খোঁজাখুঁজি করার সময় শব্দ পেয়ে মুসলিম উদ্দিনের ঘুম ভেঙ্গে যায়। এসময় তিনি চোর চক্রের এক সদস্যকে চিনতে পেরে নাম ধরে ডাক দিলে সহযোগী চোরদের হাতে থাকা রড দিয়ে তার মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকে এবং হত্যার উদ্দেশ্যে তার ডান চোঁখের পাশ দিয়ে মাথায় রড ঢুকিয়ে দেয়।

এসময় আহত মুসলিম উদ্দিনের ডাক চিৎকারে আশপাশের মানুষ দৌড়ে আসলে চোরচক্রটি পালিয়ে যায়। পরে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় বেলাব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। সেখানে দুই দিন চিকিৎসা শেষে একটু সুস্থ ও জ্ঞান ফিরলে, তিনি জানান সেইদিন নাপিতেরচর গ্রামের ছন্দু মিয়ার ছেলে হাবিবুল্লাহ (২৫) ও তার সাথে থাকা অজ্ঞাত আরো দুই চোর তার বাসায় চুরি করতে আসে। তখন তিনি হাবিবুল্লাহকে চিনে ফেলার পর তার নাম ধরে ডাক দিলে তাকে হত্যার চেষ্টা চালায় চোর চক্রটি।

এই ঘটনায় মুসলিম উদ্দিনের নাতনি মোছাঃ জেরিন আক্তার বাদি হয়ে কুলিয়ারচর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে। অভিযোগ দাখিলের পর থেকে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য মোঃ ছন্দু মিয়া প্রকাশ্যে ভূক্তভুগী মুসলিম উদ্দিনকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে আসছে। এই নিয়ে ভুক্তভোগী পরিবারের মাঝে নতুন করে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এই বিষয়ে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ.কে.এম সুলতান মাহামুদ বিষয়টি সম্পর্কে অবগত আছেন জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আসামীদের গ্রেফতারের জোর চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.