২৪ ঘন্টাই খবর

শৈলকুপায় প্রতিবন্ধী সন্তান নিয়ে বিপাকে পিতা-মাতা ; চান আর্থিক সহযোগিতা

ঝিনাইদহ এম বাদশা মিয়া:

নাম সুহায়বা। বয়স মাত্র তিন বছর। মিষ্টি চেহারার শিশু কন্যাটি তোতা পাখির মতো কথা বলে। কিন্তু জন্ম থেকে তার হাত পা আঙ্গুল বিহীন। নিজে চলাফেরা এমনকি খেতেও পারে না। পিতা বিপ্লব শেখ নিজেও বাক প্রতিবন্ধি। রাজমিস্ত্রির জোগালের কাজ করে সংসার চালান। কিন্তু বাক প্রতিবন্ধি হওয়ায় বেশির ভাগ সময় থাকেন বেকার।

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার বাগুটিয়া গ্রামে শিশু সুহায়বার জন্ম। দরিদ্র বাক প্রতিবন্ধী বিপ্লব শেখ ফুটফুটে সুন্দর এই কন্যা শিশুটি নিয়ে পড়েছেন বিপাকে। সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন। বিপ্লব শেখের নিজের কোনো জমি নেই। এই দম্পত্তির ৭ বছরের আরেকটি কন্যা রয়েছে। শিশুটির মা চুমকি বেগম আজ কোলে নিয়ে শৈলকুপা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে ঘুরতে দেখে শৈলকুপা প্রতিবন্ধী মেয়েটির ছবি মোবাইলে তোলেন এম হাসান মুসা।

শিশুটির মা জানান, জন্ম থেকেই তার মেয়েটি প্রতিবন্ধী এবং বয়স না হওয়ার কারনে তার ভাতা হচ্ছে না। বেশির ভাগ সময় দুই সন্তান নিয়ে অনাহারে দিন কাটায় পরিবারটি। সমাজের বিত্তবানদের কাছে পরিবারটি আর্থিক সহায়তা কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে শৈলকুপার উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মাসুদ আহমেদ জানান, শিশুটিকে আমি দেখেছি তবে তার বয়স ৬ বছর না হওয়া পর্যন্ত তাকে কোনো ভাতা প্রদান করা যাচ্ছে না। ওই পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে বা আর্থিক সহায়তা করতে নগদ একাউন্ট নং ০১৭৯২৪৮৫৭৪০ যে কেও যোগাযোগ করতে পারেন। মোবাইল নাম্বারটি প্রতিবন্ধি শিশুটির মা চুমকি বেগমের।

Leave A Reply

Your email address will not be published.