২৪ ঘন্টাই খবর

বাগেরহাটে ব্যাপকহারে বেড়েছে উঠতি বয়সী বাইকারদের বেপরোয়া বাইক চালানো, প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ
সম্প্রতি বাগেরহাটে  উঠতি বয়সী তরুনদের বেপরোয়া বাইক চালানোয় প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা, নিহত,আহত,পঙ্গুত্ববরনের হার যেনো জ্যামিতিক হারে বেড়েই চলেছে!! বাগেরহাটের বেশীরভাগ ধনাট্য পরিবারের সন্তানেরা অষ্টম শ্রেনী থেকেই পিতামাতাকে প্রেশার ক্রিয়েট করে উন্নত প্রযুক্তির বাইক কিনে দিতে,অধিকাংশ ক্ষেত্রে পিতামাতা নিরুপায় হয়ে বাইক কিনে দেয়।এদের থাকেনা কোনো ড্রাইভিং লাইসেন্স, বিকাল হলেই বাগেরহাট শহর রক্ষা বাঁধ,খানজাহানআলী মাজার টু মুনিগঞ্জ ব্রীজে চলে এদের বাইকের বিভিন্ন ধরনের ষ্ট্যান্ট করা এবং মহড়া কখোনো ৮/১০ টি বাইক একসঙ্গে বহর দিয়ে চলতে গিয়ে রাস্তার অন্যান্য যানবাহনকে দুর্ঘটনায় ফেলছে,কেউবা ব্রীজের উপর ১০০ থেকে ১২০ স্পীডে এলোমেলো ভাবে বাইক ড্রাইভ করে।রাত্রে বেলা অধিক পাওয়ারের এলইডি, এইচ আইডি লাইট ব্যাবহার করে পথচারীদের চোখ ধাঁধিয়ে দেয়। বিভিন্ন ধরনের প্রযুক্তি  ব্যবহার করে বাইকে উচ্চমাত্রার শব্দ সৃষ্টি করে পথচারীদের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি করে। ব্রীজে বিকেলে পরিবার পরিজন নিয়ে ঘুরতে আসা দর্শনার্থীরা পড়েন বিপদে ।অনেক ক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় পড়ে বাইক চালক সহ পথচারী পঙ্গুত্ব বরন করছে এর সংখ্যাও কম নয়। সাম্প্রতিক সময়ে পরপর বেশ কয়েকটি দুর্ঘটনায় ৮ থেকে ১০  তরুন যুবক মৃত্যুবরন করা সহ পঙ্গুত্ব বরন করেছে অর্ধ শতাধিক পরিবারের অতি আদরের সন্তানেরা। তার পরেও থেমে নেই এই তরুন ষ্টাইলিষ্ট বাইকারদের মৃত্যুমুখী বাইক চালনা। এই দুর্ঘটনা গুলোতে কেউ কেউ তার একমাত্র আদরের সন্তানকে হারিয়েছে। এলাকাবাসীর দাবি প্রশাসন যদি প্রতিদিন বিকেলে খানজাহানআলী মাজার মোড় থেকে মুনিগঞ্জ ব্রীজের উপর এর যেকোনো এক যায়গা চেকপোষ্ট বসিয়ে এইসব বাইকারদের থেকে মোটা অংকের আর্থিক জরিমানা আদায় করে তাহলে হয়তো এই ধরনের উশৃংখল বাইক চালনা বন্ধ হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.