২৪ ঘন্টাই খবর

ভিন্নরূপে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করলো প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি :

১জুন ২০২১ বিকেল ৩-৪ টায় ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে একযোগে গাইবান্ধা, শরীয়তপুর, সিরাজগঞ্জ, ঝালকাঠি, পিরোজপুর সহ অনন্য জেলায় বিভিন্ন কর্মসূচি শুভ উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মানিত সভাপতি যুব ও ক্রীড়া সংগঠকের আইকন প্রতিক্ষণ স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির স্বপ্নদ্রষ্টা,তারুণ্যের প্রতীক রক্তযোদ্ধা সৈনিক আল সাজিদুল ইসলাম দুলাল। ১২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে দেশ ও মানুষের কথা চিন্তা করে কেক কাটার পরিবর্তে প্রত্যেক সদস্যকে একটি করে গাছ লাগানোর অনুরোধ জানিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনের আহ্বান জানিয়েছেন সংগঠনের স্বপ্নদ্রষ্টা, প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আল সাজিদুল ইসলাম দুলাল এ সময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন প্রীতি যুব কল্যান সংস্থার সভাপতি প্রীতি ইসলাম পারভীন ,কেন্দ্রয় কমিটির সহ সভাপতি গোলাম মহসিন রাসেল ,রক্তদান উপ পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী মোঃ বাতেন হাওলাদার সহ বিভিন্ন জেলার প্রতিনিধিগণ সভাপতিত্ব করেন ১২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর প্রধান সমন্বয়ক এড. মাসুদুর রহমান। বর্তমান প্রজন্মের তরুন ও যুবদের অভিনব ডিজিটাল ব্লাড ডোনেটিং অনলাইন সংগঠন প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশ প্রতিক্ষণ যুব ফাউন্ডেশন এর একটি প্রতিষ্ঠান। যার মাধ্যমে স্বেচ্ছায় রক্তদাতা ও রক্ত গ্রহীতাদের সংযোগ ও সামাজিক উন্নয়নের সম্পর্ক সৃষ্টি করা। বর্তমান কোভিড -১৯ প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব যখন স্তব্ধ, যেখানে প্রতিটি মানুষই তার বা তার পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে সন্ধিহান, সে সময়ই এই সংগঠনের রক্তযোদ্ধা সৈনিকরা প্রতি মাসে গড়ে প্রায় ৮০০-১০০০ ব্যাগ স্বেচ্ছায় রক্তদান করে আসছে। মে – ২০২১ পর্যন্ত প্রায় ১৩,৭৯৬ ব্যাগ স্বেচ্ছায় রক্তদান করে প্রতিক্ষণ পরিবার। এই পৃথিবীকে যে আবস্থায় পেয়েছি, তার চেয়েও সুন্দর রেখে যেতে চাই। “মমূর্ষুদের বাঁচাতে প্রাণ আসুন করি রক্ত দান” এই স্লোগানকে ধারণ করে, বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া যুবদের হাত ধরে “প্রতিক্ষণ ব্লাড রিজার্ভেশন অব বাংলাদেশ” এর পথচলা। ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প, স্বেচ্ছায় রক্তদানে উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচী পালন করতে প্রতিক্ষণ এর একঝাক নিবেদিত প্রাণ নিয়মিত কার্যক্রম করে আসছে। রক্তদান একটি সম্পূর্ণ নিরাপদ প্রক্রিয়া এবং এর মাধ্যমে অনেক অনাকাঙিক্ষত মৃত্যু প্রতিরোধ করা সম্ভব, বাঁচানো সম্ভব মহামূল্যবান বহু মানব প্রাণ। বর্তমানে এটি আরো বিস্তৃত পরিসরে দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশেও কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সংগঠনটি কাজ অনলাইন এর মাধ্যমে স্বেচ্ছাসেবক তৈরী করে মানুষকে রক্ত সংগ্রহ করে মুমূর্ষুদের জীবন বাঁচানো। মানবজীবনে এক ব্যাগ রক্তের গুরুত্ব অপরিসীম। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় এক ব্যাগ রক্তের জন্য একজন মানুষ মৃত্যু বরন করছে। জরুরী মুহূর্তে একটা রোগীকে রক্ত প্রদানের লক্ষ্যে এ সংগঠনটি স্বেচ্ছায় কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিক্ষণ ১৭ হাজার সদস্যর একটি পরিবার আর এই পরিবার থেকে বছরে প্রায় ৮ হাজার ব্যাগ রক্ত মুমূর্ষুদের বাঁচাতে সহায়তা করছে । দেখা গেছে রিজার্ভ ডোনার না থাকলে মুমূর্ষুদের বাঁচাতে জরুরী প্রয়োজনে দাতা পাওয়া খুবিই কষ্টকর আর তাই রক্তদাতা তৈরী করাটাই হচ্ছে প্রতিক্ষণ এর মূল লক্ষ্য। আমাদের রক্তযোদ্ধা সৈনিকরা দেশের প্রতিটি জেলা এবং বিভাগীয় কমিটির মাধ্যমে যার যার নিজ অবস্থান থেকে নিরবে নিভৃতে এই মহান মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিক্ষণ ইতি মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা এবং আনন্দ-উচ্ছাসের মধ্য দিয়ে ২০২১ সালের ১ জুন রোজ মঙ্গলবার সারাদেশে কেক না কেটে একযুগে বারটি জেলায় বৃক্ষ রোপন এবং স্বেচ্ছায় রক্তদান এর মধ্য দিয়ে পালন করেছে ১২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। সবুজে বাঁচি সবুজ বাঁচাই, নগর প্রাণ প্রকৃতি সাজাই এই স্লোগান নিয়ে স্বেচ্ছায় রক্তদান বা ডোনার তৈরীর পাশাপাশি প্রতিটি জেলায় একটি বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি বাধ্যতামূলক করা হযেছে। তাছাড়াও“নৈতিকতা অবক্ষয় রোধে” যুব সচেতনতায় করণীয় শীর্ষক আলোচনা,স্বেচ্ছায় রক্তদাতা উদ্দেশ্যে সচেতনতা সৃষ্টি এবং জন সাধারণকে রক্তদানে উদ্বুদ্ধ করণে অনলাইনে কনফারেন্স, ১.নৈতিকতা অবক্ষয় রোধে যুব সচেতনতায় করণীয় শীর্ষক আলোচনা । ২.স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের উদ্দেশ্যে অনলাইনে কনফারেন্স। ৩. রক্তদাতা তৈরি ,৪.রক্তের গ্রুপ নির্ণয়, ৫.স্বেচ্ছায় রক্তদান,৬. বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি,৭.গল্প, ৮,কবিতা, ৯ গান,১০ খেলাধুলা, ১১.কুইজ প্রতিযোগিতা, ১২.চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, ১৩, বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও ১৪. রচনা প্রতিযোগিতা, ১৫. এক মিনিটের মোটিভেশনাল বক্তব্যর ভিডিও চিত্র, ১৬. প্রত্যেককে ১২ জন সদস্য সংযুক্ত করা। সহ আরো অনেকে কিছু পালন করা হয়েছে। প্রতিক্ষণ পরিবারের অগ্রযাত্রা ও উন্নতি কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় এবং সকল জেলায় সদস্যরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে উৎযাপন করেন ১২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী।

Leave A Reply

Your email address will not be published.