২৪ ঘন্টাই খবর

আরও ৩৬ মৃত্যু, শনাক্ত ৮ লাখ ছাড়াল

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৬ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৬১৯ জনে। এই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৭১০ জনের। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা শনাক্ত সংখ্যা বেড়ে আট লাখ ছাড়িয়ে গেছে। এবার মোট শনাক্ত আট লাখ ৫৪০ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

সরকারি হিসাবে, আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ১ হাজার ৫৬৭ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাদের নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৪০ হাজার ৩৭২ জন।

গত বছর ৮ মার্চ বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ার পর ২০ ডিসেম্বর শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৫ লাখ ছাড়িয়ে যায়। এরপর ৯৯ দিনে আরও এক লাখ রোগী শনাক্ত হওয়ায় ২৯ মার্চ দেশে আক্রান্ত সংখ্যা ছয় লাখ ছাড়ায়।

ততদিনে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের কবলে পড়ে বাংলাদেশ; দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করে হু হু করে। মাত্র ১৬ দিনে আরও এক লাখ মানুষের দেহে সংক্রমণ ধরা পড়লে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১৪ এপ্রিল সাত লাখ পেরিয়ে যায়। এরমধ্যেই গত ৭ এপ্রিল রেকর্ড ৭ হাজার ৬২৬ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়।

দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা সাত লাখ থেকে আট লাখে পৌঁছতে সময় লেগেছে ৪৭ দিন। দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কা সামলে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এখন এপ্রিলের তুলনায় কমে এলেও ওই সংখ্যা এখনও এক থেকে দুই হাজারের মধ্যে ঘোরাফেরা করছে।

করোনাভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বছর ১১ মে তা ১২ হাজার ছাড়িয়ে যায়। এরমধ্যে ১৯ এপ্রিল রেকর্ড ১১২ জনের মৃত্যুর খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

বিশ্বে শনাক্ত কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ইতোমধ্যে ১৭ কোটি ৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। মৃত্যু হয়েছে ৩৫ লাখ ৪২ হাজারের বেশি মানুষের।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে,গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৫০৩টি ল্যাবে ১৮ হাজার ১৭৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৫৯ লাখ ৪৭ হাজার ৫১৩টি নমুনা।

সোমবার নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্ত হার ৯ দশমিক ৪১ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত হার ১৩ দশমিক ৪৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৪৮ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.