২৪ ঘন্টাই খবর

ভয়ংকর ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে হরিয়ানাতেই ৫০ মৃত্যু

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মাঝেই চিন্তা বাড়িয়েছে ব্ল্যাক, হোয়াইট ও ইয়েলো ফাঙ্গাস।এসব ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে। হরিয়ানায় এখন পর্যন্ত ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার (৩০ মে) এ কথা জানান হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর। এছাড়া রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে সংক্রমিত ৬৫০ জনের চিকিৎসা চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এখন পর্যন্ত হরিয়ানায় ৭৫০ এর বেশি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৫৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। মৃত্যু হয়েছে ৫০ জনের। ৬৫০ জনের চিকিৎসা চলছে।

তিনি জানান, এই ফাঙ্গাসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত ইঞ্জেকশনের জোগান দিচ্ছে সরকার। কিছু ইঞ্জেকশন সরকারি হাসপাতালে ব্যবহার করা হচ্ছে। আমরা ছয় হাজার ভায়াল পেয়েছিলাম। আগামী দুই দিনের মধ্যে আরও দুই হাজার পেয়ে যাব। এছাড়া আরও ৫ হাজার ভায়ালের অর্ডার দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত-মৃত্যু দুটোই কমেছে

এর আগে গত বৃহস্পতিবার হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ কর্মকর্তাদের সরকারি হাসপাতালে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের চিকিৎসায় বেডের সংখ্যা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন। ২০ থেকে বাড়িয়ে ৭৫ করতে বলেছিলেন তিনি। এর পাশাপাশি দেরি না করে যাতে ঠিক সময়ে রোগীর কাছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের ওষুধ পৌঁছে যায় তা দেখতে বলেছিলেন। নজর দিতে বলেছিলেন ইঞ্জেকশন ও অন্যান্য ওষুধের ঘাটতি মেটানোর।

প্রসঙ্গত, গত দুই সপ্তাহ ধরে এই রাজ্যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্য সরকারের পক্ষে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত ১২ হাজার এমফোটেরিসিন-বি ইঞ্জেকশনের অনুরোধ জানানো হয়েছে কেন্দ্রের কাছে।

কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যে এই ছাত্রাকঘটিক সংক্রমণের মোকাবিলা চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনিয়ন্ত্রিত ব্লাড সুগার, কোভিডের চিকিৎসার সময় স্টেরয়েডের অপব্যবহার এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কারণ বলে মনে করা হচ্ছে। সরকার এই রোগের চিকিৎসায় ওযুধের সরবরাহ বাড়িয়েছে। অনেক রাজ্যই এই রোগকে মহামারি ঘোষণা করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.