২৪ ঘন্টাই খবর

গাজীপুরে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক গ্রেফতার ॥ ২ দিনের রিমান্ড

গাজীপুর সংবাদদাতা :

টঙ্গীর বহুল আলোচিত ছাত্রলীগ নেতা মো. রেজাউল করিম (৩২) কে গ্রেফতার করেছে জিএমপি পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে হিমারদিঘী কেরানিরটেক বস্তি এলাকা থেকে মাদক ও চাঁদাবাজি মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। গতকাল বুধবার সকালে তাকে গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। গ্রেফতারকৃত রেজাউল করিম টঙ্গীর নোয়াগাঁও হিমারদীঘি এলাকার হোসেন আলীর ছেলে। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক ও টঙ্গী সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সাজ্জাদুল ইসলাম নামে এক ব্যবসায়ীর কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন ছাত্রলীগ নেতা রেজাউল করিম। পরে ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রী শিল্পী আক্তার এ ঘটনায় বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (অপরাধ-দক্ষিণ) ইলতুৎমিশ গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, টঙ্গী পূর্ব থানার একটি মামলায় রিমান্ডে থাকা আসামি জাকির হোসেনের স্বীকারোক্তি মতে টঙ্গী পূর্ব থানাধীন হিমারদীঘি আমতলী কেরানীরটেক এলাকায় তার নিজ বাসার আলমারি থেকে ৫শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পরে অভিযানকালে জাকির হোসেনের ভাই মো. নবীন হোসেনের কাছ থেকে ২৯৪ পুরিয়া গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এ সময় পুলিশ নবীন হোসেনকেও গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত জাকির হোসেন পুলিশকে জানান, টঙ্গীর নোয়াগাঁও হিমারদিঘী এলাকার হোসেন আলীর ছেলে ছাত্রলীগ নেতা রেজাউল করিমের সরবরাহ করা ইয়াবা জাকির হোসেন দীর্ঘদিন যাবৎ ক্রয়-বিক্রয় করে আসছেন। ইয়াবা বিক্রির লভ্যাংশ তারা আনুপাতিক হারে ভাগ করে নেন। কোটিপতি মাদক কারবারি ছাত্রলীগ নেতা রেজাউলের মাদক কারবার ও চাঁদাবাজি নিয়ে ধারাবাহিকভাবে বেশ কিছুদিন কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশিত হয়ে আসছে। প্রশাসন, স্থানীয় রাজনীতিক ব্যক্তিবর্গরা তার বিরুদ্ধে প্রকাশিত প্রতিবেদন দেখে বিস্মিত হন। নড়েচড়ে উঠেন ছাত্রলীগ নেতা নামধারী রেজাউলের বিষয় নিয়ে। এ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে টঙ্গী তথা গাজীপুরে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়নি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.