২৪ ঘন্টাই খবর

গোবিন্দগঞ্জে গোডাউনে আগুন : তিন ডিলারের প্রায় ৪০ লাখ টাকার মালামাল ভস্মীভূত

গোবিন্দগঞ্জে গোডাউনে আগুন : তিন ডিলারের প্রায় ৪০ লাখ টাকার মালামাল ভস্মীভূ

 

আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, স্টাফ রিপোর্টার:-

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে অগ্নিকাণ্ডে দুটি কোমল পানীয় গোডাউন ও একটি সিসি টিভি ডিট্রিবিউটরে মালামাল পুড়ে ছাই হয়েছে। আজ ৩০ মার্চ মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার মহিলা কলেজের সামনে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

 

দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ ফার্য়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার আরিফ আনোয়ার জানান, আগুন লাগার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে টিম পাঠানো হয়। পরে এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। মূলত সিসি টিভি ক্যামেরার দোকানের বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অরিয়ান ট্রেডার্স, হিরো প্যালেস ও নাহিদ সিকিউরিটি টেকনোলজি নামে তিনটি প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অরিয়ান ও হিরো প্যালেসের গোডাউনে ছিল কোমল পানি, বিস্কুট, সেমাই, ও কোল্ড ড্রিংকস। এছাড়া নাহিদ সিকিউরিটি টেকনোলজি প্রতিষ্ঠানটিতে ছিলো সিসি ক্যামেরা ও মনিটর। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আগুনে কী পরিমাণ ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে তা নিশ্চিত করতে পারেননি স্টেশন অফিসার আরিফ আনোয়ার।

 

ক্ষতিগ্রস্ত অরিয়ান ট্রেডার্সের মালিক সাইফুল ইসলাম জানান, তার গোডাউনে কোম্পানির কোমল পানি, বিস্কুট, সেমাই, ও কোল্ড ড্রিংকসসহ বিভিন্ন মালামাল সংরক্ষিত ছিল। এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তার প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে।

 

নাহিদ সিকিউরিটি টেকনোলজি প্রতিষ্ঠানটির মালিক মেহেদী হাসান নয়ন বলেন, ‘আমার দোকানে সিসি টিভি ক্যামেরা ও মনিটর ছিল। আগুনে দোকানের সব পুড়েছে। এতে আমার ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১২ লক্ষাধিক টাকা।

 

হিরো প্যালেসের মালিক আসাদুজ্জামান হিরু জানান, কোম্পানির কোমল পানি, সেমাই, বিস্কুট ও কোল্ড ডিংকস পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অগ্নিকাণ্ডে তার ক্ষতি সাধন হয়েছে প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকা।

 

এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন, মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী। এছাড়াও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সাবেক সংসদ সদস্য উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ যুগ্নঃ সম্পাদক আব্দুল লতিফ প্রধান, পৌরসভার মেয়র মুকিতুর রহমান রাফি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সাঈদ, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগ সদস্য খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জহিরুল ইসলাম, স্থানীয় সংসদ সদস্য’র সমন্বকারী কৃষিবিদ আব্দুল্লাহ আল হাসান চৌধুরী লিটন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহিন আকন্দ, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি তাহেদুল ইসলাম রকেট, সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ঠান্ডু। এসময় উপজেলা প্রশাসন ও নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের সাথে কথা বলেন এবং সহযোগীতার আশ্বা্স  দেন

Leave A Reply

Your email address will not be published.