২৪ ঘন্টাই খবর

মোল্লাপাড়ায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ২৫ লাখ টাকার ক্ষতি 

মোল্লাপাড়ায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ২৫ লাখ টাকার ক্ষতি

 

তোফাজ্জল হোসেন শিহাব

 

মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার ৭ নং ওয়াড মোল্লাপাড়া বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। গেল সোমবার দিবাগত রাত ১ টার দিকে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে । এ ঘটনায় মোল্লাপাড়া বাজারের রমিজ স্টোর নামে ১ টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায় ।

 

এতে অন্তত ২৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায় , আগুন লাগার সঠিক সময় জানা যায় নি । তবে ভেতরে লাগা আগুন যখন বাহিরের দিকে আসতে শুরু করে তখনই হইচই পড়ে যায় । পরে স্থানীয়রা এসে দ্রুত আগুন নোভানোর কাজ শুরু করে ।

 

খবর পেয়ে মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে । এলাকাবাসি ও ফায়ার সাভিস এর যৌথ প্রচেষ্টায় ২ ঘন্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে । এর আগে দোকানের ভেতরে থাকা সকল জিনিসপত্র , মালামাল , নগদ টাকা কোন কিছুই বের করা সম্ভব হয়নি বলে জানা যায় ।

 

এ দিকে স্থানীয়দের অভিযোগের তীর রয়েছে মুন্সীগঞ্জ পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির দিকে । মোল্লাপাড়া এলাকায় কয়েকটি বিদ্যুতের খুটির জন্য ফায়ার সাভিসের গাড়ি আসতে পারে নি। যার কারনে আগুন নিভানো কাজ ব্যাহত হয়েছে । বেশ কয়েকটি খুটি যোগিনীঘাট এলাকা থেকে মোল্লাপাড়া বাজার পযন্ত প্রধান সড়কে রয়ে গেছে । খুটিগুলো অপসারনে স্থানীয় কাউন্সিলর ও সুশিল সমাজের লোকজন অভিযোগ করেও কোন শুরাহা পান নি। গেল কয়েকমাস আগে একই এলাকার ১টি দোকানে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে । রাস্তার বিদ্যুতের খুটির জন্য ফায়ার সাভিসের গাড়ি আসা সম্ভব হয় নি । একই ঘটনার আবারো পুনারাবৃত্তি ঘটলেও পল্লি বিদ্যুত কতৃপক্ষ খুটি অপসারনের বিষয়টি কোন আমলেই নিচ্ছে না ।

 

স্থানীয় রহিম মিয়া বলেন , রাত আনুমানিক ১ টা বাজে তখন । আমি বাহির থেকে চিৎকা চেচামেচির আওয়াজ পেয়ে রাস্তায় গিয়ে দেখি দোকানে আগুন জলছে । তাড়াহুড়ো করে আগুন নিভানোর কাজে চলে যাই । এমন বিভৎস আগুন আমি আগে কখনো দেখি নাই।

 

জয়নাল মিয়া জানান , মানুষের চিৎকারে আমি ঘর থেকে বের হই। রাস্তার দিকে এসে দেখি দোকানো আগুন জলছে । আগুনের এমন তাপ সামনে যাওয়া সম্ভব হয়নি । তারপরেও আমরা সবাই মিলে আগুন নিভানোর জন্য কাজ করেছি। চোখের পলকে দোকাটি ধসে পড়ে গেল ।

 

ভুক্তভোগি দোকান মালিক মো. রমিজ উদ্দিন বলেন , আমি আসলে বুজতে পারছি না কিভাবে এমন ঘটনা ঘটেছে। সারাদিন তো ভালই গেছে । রাত্র ১১ টায় দোকান বন্ধ করলাম । কিভাবে আগুন লাগলো জানি না । আমার সব কিছুই শেষ হয়ে গেল ।

 

মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা নিমল চন্দ্র জানান, আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। রাস্তার বিদ্যুতের খুটির জন্য আমাদের আসতে সমস্যা হয়েছে। ঘন্টা ২ চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে সক্ষম হই। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত এটি ধারনা করা হচ্ছে । এ বিষয়ে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.