২৪ ঘন্টাই খবর

১৫ মাসে ১৫ কেজি ওজন কমাবে যে ওষুধ

ক্ষুধা দমন করে শরীরের অনাকাঙ্ক্ষিত ওজন কমানোয় সফল হয়েছেন বিজ্ঞানীরা। আন্তর্জাতিকভাবে বিশাল এক ট্রায়াল চালিয়ে দেখা গেছে, পরীক্ষায় অংশ নেয়া অনেকেই ১৫ মাসে গড়ে ১৫ কেজি ওজন কমাতে সফল হয়েছেন। প্রায় ২ হাজার মানুষের ওপর এই ট্রায়াল চালানো হয়। ট্রায়ালে অংশ নেয়াদের প্রতি সপ্তাহে একবার করে সেমাগ্লুটাইড নামে ওষুধ ইনজেকশন হিসেবে দেয়া হয় এবং সেই সঙ্গে তাদের খাদ্যাভ্যাস ও শরীর সুস্থ রাখার জন্য পরামর্শও দেয়া হয়।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, তাদের পনের মাসের ট্রায়ালে গড়ে ১৫ কেজি করে ওজন কমেছে আর এই ফলাফল থেকে তারা এটাও মনে করছেন শরীরের ওজন কমানোর চিকিৎসায় নতুন এই ওষুধটা এক ‘নতুন যুগের’ সূচনা করবে।

ব্রিটেনের কেন্ট অঞ্চলের জ্যান এই ট্রায়ালে অংশ নিয়ে পরীক্ষায় ২৮ কেজি ওজন কমিয়েছেন, যা তার শরীরের মোট ওজনের পাঁচ ভাগের এক ভাগ। জ্যান জানিয়েছেন, এই ওষুধ জীবন বদলে দিয়েছে তার এবং খাবারের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গিও বদলে গেছে। আগে ডায়েট করে ওজন নিয়ন্ত্রণে আনা ছিল কষ্টের কিন্তু এই ওষুধের অভিজ্ঞতা পুরো আলাদা। ওষুধ নেয়ার পর ক্ষুধা কম পেত তার।

তবে ট্রায়াল শেষে জ্যানের আবার সেই আগের মত ক্ষুধা বেড়েছে এবং তার ওজনও বাড়ছে। জানিয়েছেন, ট্রায়ালের সময় ওজন কমানো কষ্টকর ছিল না কিন্তু এখন আবার ক্ষুধার সঙ্গে সর্বদা লড়াই করতে হচ্ছে তাকে।

যে সকল মানুষ টাইপ-টু ডায়াবেটিসের জন্য চিকিৎসা নিয়ে থাকেন তাদের অনেকের কাছেই সেমাগ্লুটাইড পরিচিত নাম। তবে ওজন কমানোর এই ট্রায়ালে ওষুধটি বেশি ডোজে প্রয়োগ করা হয়েছে। ওষুধটি শরীরে ক্ষুধা প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করার মাধ্যমে ওজন কমায়।

নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিন নামের এক সাময়িকীতে ট্রায়ালের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। সেমাগ্লুটাইড ওষুধ নেয়া ব্যক্তিদের গড়ে ১৫ কেজি ওজন কমেছে এবং যারা ওষুধ নেয়নি তাদের ওজন কমেছে গড়ে ২.৬ কেজি। ওষুধ নেয়া ব্যক্তিদের ৩২ শতাংশের পাঁচ ভাগের এক ভাগ ওজন কমেছে এবং যারা ভুয়া ওষুধ নিয়েছে তাদের ২ শতাংশেরও কম ব্যক্তির ওজনে কোনো হেরফেরই হয়নি। সূত্র : বিবিসি বাংলা

Leave A Reply

Your email address will not be published.