২৪ ঘন্টাই খবর

সচিব পর্যায়ের বৈঠকে তিস্তা চুক্তির অনুরোধ জানালো বাংলাদেশ

ভারতের কাছে তিস্তা চুক্তির অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ। দিল্লিতে বাংলাদেশ-ভারতের পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠকে এ অনুরোধ করা হয়। এছাড়া ২০২১ সালের মার্চে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফরের প্রস্তুতির দিক নিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বৈঠকে আলোচনায় প্রাধান্য পেয়েছে।

শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) নয়াদিল্লিতে ভারত ও বাংলাদেশ বৈদেশিক অফিস পরামর্শ (এফওসি) বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়। দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের পঞ্চাশতম বার্ষিকী স্মরণে অনুষ্ঠানগুলো আলোচনা করা হয়েছে।

বৈঠকে বাংলাদেশ-নেপাল-ভারতের মধ্যে মোটর ভেহিকেল এগ্রিমেন্ট দ্রুত বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন চারদিনের সফরে বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লি গেছেন। আগামী ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফর চূড়ান্তের বিষয়টি এবারের দিল্লি সফরে প্রাধান্য পাচ্ছে।

কোভিড-১৯ সত্ত্বেও ধারাবাহিকভাবে এই বৈঠক অব্যাহত রেখে দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে। দু’পক্ষের সাম্প্রতিক বৈঠকগুলোতে ২০২০ সালের ১৭ ডিসেম্বর ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনের পরে, ৫১ তম বিএসএফ – বিজিবি মহাপরিচালক স্তরের ২২-২৬ ডিসেম্বর গুয়াহাটিতে বৈঠক হয়েছে, যৌথ নদী কমিশনের কারিগরি স্তরের বৈঠক ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি, ১২ জানুয়ারি প্রথম পুলিশ প্রধানদের সংলাপ এবং ২৩ জানুয়ারি বিদ্যুৎ খাতের সহযোগিতা সম্পর্কিত ১৯তম সচিব-স্তরের যুগ্ম পরিচালন কমিটির বৈঠক হয়েছে।

দ্বিতীয় ভারত-বাংলাদেশ কনস্যুলার সংলাপ গতকাল ২৮ জানুয়ারিতে নয়াদিল্লিতে এবং উভয় পক্ষই মার্চ ২০২১ শীর্ষ সম্মেলনের আগে পরবর্তী স্বরাষ্ট্রসচিব পর্যায়ের আলোচনা, বাণিজ্যসচিব স্তরের আলোচনা এবং যৌথ নদী কমিশনের সচিব স্তরের বৈঠক করার বিষয়ে একমত হন।

বৈঠকে পররাষ্ট্র সচিবের সাথে বাংলাদেশ হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরান, সচিব (পূর্ব) রাষ্ট্রদূত মাশফি শামস এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্র, বাণিজ্য ও জল সম্পদ মন্ত্রকের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। ভারতীয় প্রতিনিধি দলটিতে বিদেশ, স্বরাষ্ট্র, বাণিজ্য ও শিল্প, জল শক্তি ও অর্থ মন্ত্রকের প্রতিনিধি ছিলেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.