২৪ ঘন্টাই খবর

নওগাঁয় নব-নির্বাচিত মেম্বরের এর বিরুদ্ধে শ্লীতাহানীর অভিযোগ

হাবিব ঃ

দ্বিতীয় ধাপে নওগাঁ সদর উপজেলার হাপানিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত প্রার্থী মিলন সরকার(জীবন) এবং তার কর্মী সমর্থকদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ,হুমকি,ভয়ভীতি এবং ৯ নং ওয়ার্ডের কুশাডাঙ্গা গ্রামের রেহেনা বেগম নামে এক নারী কর্মীর শ্লীতাহানী করে বলে অভিযোগ উঠেছে ওই ইউনিয়নের বিজয়ী ইউপি সদস্য এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটু ও তার দুই সহদ্বরদের বিরুদ্ধে। গত ১১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার নওগাঁ জেলার দুটি উপজেলায় মোট ২০টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে হাপানিয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে নির্বাচিত হন এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটু । নির্বাচনের পরের দিন ওই নব নির্বাচিত ইউপি সদস্যসহ কর্মী সমর্থকরা আনন্দ মিছিল করার সময় পরাজিত প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের ইঙ্গিত করে নানা উস্কানিমুলক কথা বলেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩/১১/২০২১ ইং তারিখে রেহেনা বেগমের পক্ষে তার ছেলে রাজিব সরকার বাদী হয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানায় তিনজনের নামে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্ত ১ নং এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটু(৫০) সহ তার দুই ভাই মো মোস্তাফিজুর রহমান(৪০) এবং মোঃ মতিউর রহমান(৫৬)। উভয়ের পিতা মোঃ হাসেন সরকার, উভয় সাং কুশাডাঙ্গা নওগাঁ সদর নওগাঁ। অভিযোগে রাজিব সরকার বলেন পূর্ব শত্রূতার জের ধরে গত ১৩/১১/২০২১ ইং তারিখে সকাল আনুমানিক ১০.০০ ঘটিকার সময় উক্ত বিবাদীগণ আমার মা মোছাঃ রেহেনা বেগম (৪৭) এর ঘরে প্রবেশ করে এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটু এবং মোস্তাফিজুর রহমান অমার মায়ের পরিহিত কাপড় ধরিয়া টানা হেছড়া করে কাপড় ছিড়িয়া শ্লীলতাহানীর করে। সে সময় রেহেনা বেগম এর ডাক চিৎকারে মোছাঃ রত্না এগিয়ে আসিলে ২ নং বিবাদী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান তার চুলের মুষ্ঠি ধরিয়া কিলঘুসি মেরে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম করে। চিৎকারের এক পর্যায়ে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে উদ্ধার করে। এ বিষয়ে ওই ভিযোগকাররি সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার মায়ের শয়ন ঘরে প্রবেশ করিয়া এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটু এবং মোস্তাফিজুর রহমান মিলিত হয়ে অমার মায়ের পরিহিত কাপড় ধরিয়া টানা হেছড়া এবং আমার বোনকে মারধোর করে। প্রশাসনের কাছে আমার দাবী,সঠিক তদন্ত করে দোষীদের শাস্তির আওয়াতায় আনা হউক । এবিষয়ে ভুক্তভোগি রেহেনা বেগম বলেন, আমি গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জীবন সরকার মিলনের হয়ে নির্বাচনে প্রচারনা কর্মী হিসেবে কাজ করেছিলাম তবে নির্বাচনে আমার প্রার্থী পরাজিত হলে বিজয়ী প্রার্থী এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটুসহ তার ভাই মিলিত হয়ে আমার পরিবারের উপর হামলা চালায়। এর আগে পুটুর স্ত্রীর সাথে কথা কাটাকাটি হলে আমাকে বিভিন্ন রকমের হুমকি, ধামকি দেয়। এর পরেরদিন পুটু তার দুই ভাই আমার বাড়িতে ঢুকে আমার সাথে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে করতে আমার ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে পরিহিত কাপড় ধরিয়া টানা হেছড়া করে কাপড় ছিড়িয়া ফেলে । আমার চিৎকারে মোছাঃ রত্না এগিয়ে আসিলে তাকেও চুলের মুষ্ঠি ধরিয়া কিলঘুসি মেরে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম করে ওই সময় ডাক চিৎকারের এক পর্যায়ে পাশ্ববর্তীরা এগিয়ে এসে উদ্ধার করে। পরাজিত প্রার্থী মিলন সরকার (জীবন) বলেন, আমি নির্বাচনে হেরে গিয়ে শোকাহত হয়ে জীবন যাপন করছি তবে আমার প্রতিদ্বন্দি এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটুসহ তার ভাই এবং তার সন্ত্রাসী বাহীনি দ্বারা আমার চোখ তুলে নিবে এবং আমাকে মেরে ফেলবে আমার কর্মী সমর্থকদের অন্যায় অত্যাচারসহ নানা ভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছেন। নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে জনগণেরে কাজ না করে অত্যাচর শুরু করছে। আমার এক নারী কর্মী রেহেনা বেগমকে শ্লীলতাহানীও করেছে। তাই আমি সরকারের কাছে আবেদন করছি আমার হাপানিয়া ইউপি ৯ নং ওয়ার্ডে শান্তির জন্য সকলকে দেশ ও দশের কল্যানে কাজ করার আহবান জানাই । এবিষয়ে মুঠোফোনে এস.এম শহিদ ইফতেখার রহমান পুটু সাথে যোগাযোগ করা হলে উক্ত অভিযোগ অস্বিকার করে তিনি বলেন, এসব আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন । আমার মান ক্ষুন্ন করার পায়তারা করছেন তারা। এবিষয়ে নওগাঁ সদর মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.