২৪ ঘন্টাই খবর

মোহনগঞ্জ পৌর নির্বাচনে দ্বন্দ্ব-কোন্দল ভুলে নৌকার পক্ষে আ.লীগ

জানুয়ারি ১২, ২০২১,

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

দ্বিতীয় ধাপে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে পৌর নির্বাচন আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। এতে মেয়র পদে তিনজন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ১৪জন ও সাধারণ কাউন্সিলর ৩৯জন সহ মোট ৫৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

আসন্ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন বর্তমান মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লতিফুর রহমান রতন। নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহনগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান আবদুল কুদ্দুস আজাদের মেয়ে তাহমীনা পারভীন বীথি। এর আগে তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম ক্রয় করলে নৌকা না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন।

অন্যদিকে মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন মোহনগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আবু হেনা মোস্তফা কামাল সেতু।

তিনিও শুরুতে নৌকার জন্য চেষ্টা চালিয়েছিলেন। চেষ্টার অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং ময়মনসিংহ বিভাগের নীতি নির্ধারকের দায়িত্বে থাকা শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের কাছে সিভিও জমা দিয়েছিলেন। পরে কোন সাড়া না পেয়ে তিনিও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন।

অপরদিকে ঋণ খেলাপির জন্য বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক পৌর মেয়র মাহবুবুন নবী শেখের প্রার্থীতা ঝুলে আছে। যে কারনে বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থী থেকেও প্রচারণা নেই।

নির্বাচনের আর মাত্র ৪দিন বাকি। চলছে শেষ মূহূর্তের নির্বাচনি প্রচার প্রচারণা। মোহনগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ এর আগে সভাপতি লতিফুর রহমান রতন ও সম্পাদক শহীদ ইকবালের নেতৃত্বে দুই ভাগে বিভক্ত থাকলেও পৌর নির্বাচনের শেষ সময়ে এসে নৌকাকে বিজয়ী করতে দুই পক্ষই একত্রে প্রচারনায় নেমেছে। পাশাপাশি উপজেলার যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ দলের সব স্তরের নেতাকর্মীরা প্রচারণার সক্রিয় হয়েছেন। স্থানীয়রা বিষয়টিকে দেখছেন ইতিবাচকভাবেই।

সম্প্রতি নৌকার পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ার লাইনস এর চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব মোহনগঞ্জের সন্তান সাজ্জাদুল হাসান। মোহনগঞ্জ তথা পুরো নেত্রকোনার ব্যাপক উন্নয়নের রূপকার সাজ্জাদুল হাসান মোহনগঞ্জে নৌকাকে বিজয়ী করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সবাইকে আহ্বান জানিয়েছেন।

এছাড়াও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সব পর্যায়ের নেতাকর্মীরাও প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তবে ইতোমধ্যেই নির্বাাচনের প্রচার প্রচারণা চলাকালে প্রচারণায় বাধা দেয়ার অভিযোগ তুলেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী তাহমিনা পারভীন বীথি। এ নিয়ে তিনি সম্প্রতি নেত্রকোনা জেলা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে ইউএনও ও ডিসির প্রত্যাহার দাবি করেছেন।

লতিফুর রহমান রতন জানান, নির্বাচনী পরিবেশ অত্যান্ত ভালো, আমার লোকজন গণসংযোগ করছে। কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর ওপর হামলা বা ভয়-ভীতি প্রদর্শন  আমার কোনো প্রার্থী আমার সমর্থন করছে না। অত্যন্ত সুন্দর পরিবেশে আগামী নির্বাচন হবে আমি আশা করছি।

নেত্রকোনার জেলা প্রশাসক কাজি মো. আবদুর রহমান জানান, নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন বা এরকম কোন অভিযোগ আমার কাছে আসেনি, এমন কোনো অভিযোগ আসলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব। আমরা আশা করছি অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবেই একটি সুন্দর নির্বাচন উপহার দিব।

www.bbcsangbad24.com

Leave A Reply

Your email address will not be published.